সিলেটের শিবগঞ্জে ছুরিকাঘাতে স্কুলছাত্র খুন                 আফগানিস্তানে বোমা বিস্ফোরণে ২৬ জন নিহত                 ভূমধ্যসাগরে মিলেছে ৪ মরদেহ, উদ্ধার ৯শ অভিবাসী                 ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা নিয়ে এই উন্মাদনার শেষ কোথায়                 মৌলভীবাজারের বন্যায় ৩ লাখ মানুষ পানিবন্দী                 আর্জেন্টিনাকে রুখে দিল নবাগত আইসল্যান্ড                 পানির নিচে সিলেট-বিয়ানীবাজার সড়ক                

উলঙ্গ মেয়েদেরও লজ্জা থাকে, কিন্তু…

: সোনার সিলেট ডটকম
Published: 22 07 2016     Friday   ||   Updated: 22 07 2016     Friday
উলঙ্গ মেয়েদেরও লজ্জা থাকে, কিন্তু…

জয়নাল আবেদীন জুয়েল: তারকাদের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। তিনি লিখেছেন ” অমিতাভ বচ্চন কে ভীষণ ভালবাসতাম। তাঁকে মনে হতো দুনিয়ার সবচেয়ে স্মার্ট পুরুষ। তারপর তাঁর ব্যাক্তিগত জীবন ঘেঁটে যখন দেখলাম কিছু হলেই তিনি তিরুপতি মন্দিরে দৌঁড়ান, শুভ কিছু ঘটানোর জন্য কোটি কোটি টাকা মন্দিরে দান করেন, তখন মন ভেংগে গেলো। সুচিত্রা সেন কে তো কম ভালবাসিনি।

শুনেছি উনিও নাকি বেলুড় মাঠে যেতেন প্রায়ই। পুজো আচ্চা দিয়ে থাকতেন। রাজ্জাকও দেখেছি ধর্ম কর্মে ডুবেছেন। ববিতা বোরখা পরছেন। শাবানা তো শরীরে বোরখা চাপিয়েছেনই, এতকাল সিনেমা করাকে পাপ করেছেন বলে মনে করেছেন।”
সুপার স্টারদের প্রতি এই হলো তসলিমার মূল্যায়ন। তাঁদের অপরাধ একটাই, তারা আস্তিক। সিনেমা জগতের মানুষরা ধর্মমুখী হবে এটা তসলিমার ধারণার বাইরে ছিলো। তিনি আশাও করেননি। সবাই তার মত ধর্মদ্রোহী হয়ে যাক এই কামনা তিনি করেন। আমার জানামতে ভারতের প্রগতিশীলরা ধর্মমুখী। আমাদের দেশের অপদার্থদের মতো তারা ধর্মহীন নয়। তাইতো অমিতাভ ও সুচিত্রা সেনের মত পর্দা কাঁপানো মানুষরা দুঃসময়ে ধর্মের ছায়ায় শান্তি খোঁজেন। তাদের নির্মিত ছবি গুলোতে তাই ধর্মের ছাপ লক্ষ্য করা যায়। তসলিমা নায়ক রাজ রাজ্জাকের ধর্ম প্রীতির কথা উল্লেখ করেছেন। ববিতা ও শাবানার বোরখা পরা নিয়ে কটাক্ষ করেছেন। তসলিমার কাছে এসব কুসংষ্কার। অথচ দিপিকা পান্ডুকোন তার প্রিয়। কারণ ঐ নায়িকা স্তন দেখাতে পারে। প্রিয়াংকা চোপড়ার একটা কথা তসলিমার খুব ভাল লেগেছে। তা হলোঃ সন্তান জন্ম দিতে পুরুষের প্রয়োজন, তাছাড়া জীবনে পুরুষের আর প্রয়োজন নেই।
আমার ধারণা ছিলো তসলিমার বয়স বেড়েছে, হয়তো লেখালেখিতে মেচিওরিটি আসবে। আমি হতাশ। তসলিমা বৃত্তাবদ্ধ। যে মানুষ ভ্রুণ হত্যাকে বৈধ মনে করে। যে অবৈজ্ঞানিক যুক্তি গ্রহণ করলে পৃথিবী মানব শূন্য হয়ে যাবে, সৃষ্টির অগ্রযাত্রা স্তব্ধ হয়ে যাবে, এধরণের উদ্ভট তথ্যের যোগান দাতা হলেন তসলিমা। এটা লেজ কাটা শেয়ালের গল্প মনে করিয়ে দেয়। নারী ও পুরুষের যদি সুন্দর সম্পর্ক না থাকে তাহলে পৃথিবীতে নুতন মানুষ আসবে কিভাবে? ধরে নিলাম আমরা সবাই তসলিমার থিউরী মেনে নিলাম। তখন এই পৃথিবীর কি হবে? এটা কমনসেন্স এর ব্যাপার। কিন্তু একজন লেখিকা নামধারীর লেখায় এমন আজগুবি অবৈজ্ঞানিক তথ্য কি শোভা পায়? তিনি সম্প্রদায়গত বিভেদ এর বিপক্ষে কথা বলে নিজেকে অসাম্প্রদায়ীক হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা করেন। একজন বিপরীত লিংগ বিরোধী মানুষ কিভাবে অসাম্প্রদায়ীক চেতনার দাবী করতে পারে, তা আমার বোধ গম্য নয়।
আমাজান জংগলের উলংগ মেয়েদেরও লজ্জা আছে। এই লজ্জা প্রকৃতির দান। সব মেয়েদের মাঝে লজ্জাবোধের ব্যাপারটা সক্রিয়। কিন্তু তসলিমা ও দিপিকা এই লজ্জাবোধ বিসর্জন দিলেও আমাদের কিছু যায় আসেনা।




Share Button

আর্কাইভ

June 2018
M T W T F S S
« May    
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  

Prayer Time Table

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ভোর ৩:৪৬
  • দুপুর ১২:০২
  • বিকাল ৪:৩৮
  • সন্ধ্যা ৬:৫১
  • রাত ৮:১৭
  • ভোর ৫:১০


Developed By Mediait