পরীমনিকে বিয়ে করছেন আলমগীর!                 তিন মেয়ে নিয়ে আত্মহত্যার অনুমতি চেয়ে মোদির কাছে চিঠি!                 শূন্য রানেই গেইলকে ফিরিয়ে দিলেন সাইফউদ্দীন                 টস জিতে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ                 অবশেষে অভিনয় জগতে পা রাখলেন শাহরুখ কন্যা সুহানা                 টাকা ভর্তি দান বাক্সে, তবুও দীর্ঘ এক যুগেও ঠিক হয়নি ঘড়ির কাটা!                 “আল্লাহকে সামনে রেখে বলুন, জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন কি না”                

টাকার বিনিময়ে শিক্ষক নিবন্ধনের ফল পরিবর্তন!

: সোনার সিলেট
Published: 03 06 2019     Monday   ||   Updated: 03 06 2019     Monday
টাকার বিনিময়ে শিক্ষক নিবন্ধনের ফল পরিবর্তন!

সোনার সিলেট ডেস্ক ।।  ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফল পরিবর্তনের নাম করে নিরীহ প্রার্থীদের কাছ থেকে বেশ কয়েকটি অসাধু চক্র অর্থ আদায় শুরু করেছে। চক্রগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ‘ফেল থেকে পাস’ করানোর নামে বিভিন্ন পোস্ট দিয়ে প্রার্থীপ্রতি ৭-১০ হাজার টাকা আদায় করার জন্য চেষ্টা করছে। আর এতে করে কোনও কোনও প্রার্থী আটকা পড়ছেন প্রতারকদের তৈরি ফাঁদে।

এদিকে এনটিআরসিএর চেয়ারম্যান এস এম আশফাক হুসেন জানিয়েছেন, টাকা দিয়ে কোনও ভাবেই ফল পরিবর্তন করা সম্ভব নয়।এমন নজির দেখাতে পারলে চাকরি ছেড়ে দেওয়ার মতো চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েও তিনি জানান, প্রতারকদের বিরুদ্ধে আইনত ব্যভস্থা নেওয়া হবে।

গত ১৯ মে প্রকাশিত ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। প্রিলিমিনারিতে ৮ লাখ ৭৬ হাজার ৩৩ জন প্রার্থী অংশ নিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন ১ লাখ ৫২ হাজার জন। অকৃতকার্য ৭ লাখের বেশি প্রার্থীকে টার্গেট করেই তৎপরতা চালাচ্ছে প্রতারক চক্রগুলো। নিবন্ধনের ফল প্রকাশের পর থেকেই ফেসবুকে নিবন্ধন প্রার্থীদের বিভিন্ন গ্রুপে কিছু পোস্ট নজরে এসেছে। এ পোস্টগুলোতে অকৃতকার্য প্রার্থীদের দেখানো হচ্ছে ফল পরিবর্তনের আশা।

রাকিব শেখ নামের একটি আইডি থেকে ফেসবুকে দেয়া একটি পোস্টে ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারিতে ফল পরিবর্তন করে টাকা আদায়ের চেষ্টা চলছে। পোস্টটিতে ফেল থেকে পাস করিয়ে দিবেন বলে শতভাগ গ্যারান্টি দিয়ে প্রার্থী প্রতি ফল পরিবর্তনের নামে চাওয়া হচ্ছে ৭ হাজার টাকা। এর মধ্যে ৪ হাজার টাকা দিতে হবে অগ্রিম।

টাকা পাঠাতে দেয়া হয়েছে মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেমে নিবন্ধিত একটি ফোন নম্বর। ফল পরিবর্তনের পর বাকি টাকা পরিশোধের সুবিধা দেয়ার কথাও বলা হয়েছে ওই পোস্টে। এমনকি সাত হাজার টাকার বিনিময়ে ফেল করা প্রার্থীদের পাস করিয়ে মোবাইলে এসএমএস ও এনটিআরসিএর ওযেবসাইটে ফল পরিবর্তন করে দেয়ার নিশ্চয়তাও দেয়া হয়েছে।

১৫ তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় ৭ লাখের বেশি প্রার্থী অকৃতকার্য হয়েছেন প্রিলিমিনারিতে। তাদের অনেকেই এসব প্রতারকদের টাকা দিচ্ছেন বা দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন নিবন্ধিত শিক্ষক হবার আশায়। কয়েকজন প্রার্থী জানান, এনটিআরসিএর কর্মকর্তাদের নাম ব্যবহার করে টাকা চাওয়া হচ্ছে। তারা কয়েকজন কর্মকর্তার নাম ব্যবহার করে প্রার্থীদের ফল পরিবর্তনের আশ্বাসও দিচ্ছেন।

তবে টাকা দিয়ে ফল পরিবর্তন করার বিষয়টি অসম্ভব বলে জানিয়েছেন এনটিআরসিএর চেয়ারম্যান এস এম আশফাক হুসেন। টাকা দিয়ে ফল পরিবর্তন করার নজির দেখাতে পারলে চাকরি ছেড়ে দেবেন দাবি করে চেয়ারম্যান জানান, কয়েকজন কর্মকর্তার নাম ব্যবহার করে টাকা আদায়ের চেষ্টা হচ্ছে, যা আমরাও জানতে পেরেছি। কিন্তু বিষয়টি সঠিক না। প্রতারকরা কর্মকর্তাদের নাম ব্যবহার করে প্রার্থীদের বিশ্বাস আদায়ের চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, টাকা দিয়ে ফল পরিবর্তন অসম্ভব। তৈরি করা ফল আমরা দেখার আগেই উত্তীর্ণ প্রার্থীরা মোবাইলে এসএমএস পান। প্রকাশের একটু আগেও ফল দেখতে পারিনা আমরা।

এনটিআরসিএর সব কার্যক্রম স্বচ্ছ ও দুর্নীতিমুক্ত দাবি করে চেয়ারম্যান আশফাক হুসেন জানান, যেসব প্রতারক টাকা আদায়ের চেষ্টা করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যদি কেউ ফল পরিবর্তনের নামে টাকা চায় তাহলে বুঝবেন প্রতারণা। কারণ ফল পরিবর্তন সম্ভব নয়। টাকা চাইলে তাকে সাথে সাথে পুলিশে হস্তান্তর করুন।

আশফাক হুসেন আরো বলেন, যদি কোন কর্মকর্তার নামে টাকা চাওয়া হয় তাহলে এনটিআরসিএকে বিষয়টি জানান। পুলিশের সহায়তা নিন। টাকা দিয়ে ফল পরিবর্তন সম্ভব নয়। ফল প্রক্রিয়ার পুরো বিষয়টি কম্পিউটার করে। কোন পরীক্ষকও খাতা দেখেনি। ফল পরিবর্তনের আশায় বুক বাঁধলে নিজেই ক্ষতিগ্রস্ত হবেন বলে হুঁশিয়ার করেন তিনি।

এসএসডিসি/আরডিআর




Share Button

আর্কাইভ

June 2019
M T W T F S S
« May    
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930

Prayer Time Table

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ভোর ৩:৪০
  • দুপুর ১১:৫৬
  • বিকাল ৪:৩২
  • সন্ধ্যা ৬:৪৫
  • রাত ৮:১১
  • ভোর ৫:০৪


Developed By Mediait