মাহমুদুরের ওপর হামলায় বিভিন্ন দল ও সংগঠনের নিন্দা                 বন্দরবাজার থেকে নগর জুড়ে এলাকায় টেবিল ঘড়ির সমর্থনে গণসংযোগ                 সম্মিলিতভাবে একটি ব্যবসাবান্ধব নগর গড়তে কাজ করব – আরিফ                 সমাজের পিছিয়েপড়া লোকদের জীবনমান উন্নয়নে ভবিষ্যতেও কাজ করবো : কামরান                 চিকিৎসার নামে ভারতে নিয়ে স্ত্রীকে দিয়ে দেহ ব্যবসা, আটক ৩                 লন্ডনীরোডে ৫ বছরের শিশুকে ধর্ষণ                 সেলিমের সরে দাঁড়ানোয় লাভবান হবে জামায়াত                

বেড়েছে সুরমার পানি, সিলেটের নিম্নাঞ্চলে বন্যা

: সোনার সিলেট
Published: 06 07 2018     Friday   ||   Updated: 06 07 2018     Friday
বেড়েছে সুরমার পানি, সিলেটের নিম্নাঞ্চলে বন্যা

সোনার সিলেট ডেস্ক।। সুনামগঞ্জে টানা বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল অব্যাহত রয়েছে। এতে জেলার তিন উপজেলার নিম্মাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। বৃষ্টিপাত থাকায় সুরমা নদী ও হাওরে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। সুরমা নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, সুনামগঞ্জ পৌর শহরের কাছে গতকাল বুধবার বিকেল চারটার দিকে বিপদসীমার ৭৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ১০৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। জানা যায়, বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢল অব্যাহত থাকায় সুনামগঞ্জ সদর, বিশ্বম্ভরপুর ও তাহিরপুর উপজেলার নিম্মাঞ্চলের কিছু মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়ছেন। তিন উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের ঘরবাড়ি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও রাস্তাঘাট প্লাবিত হয়েছে। ঢলের পানিতে প্লাবিত হওয়ায় সুনামগঞ্জ-তাহিরপুর সড়কে সরাসরি যান চলাচল করতে পারছে না।

ওই সড়কের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা শক্তিয়ারখলা এলাকা প্রায় ১ কিলেমিটার সড়ক প্লাবিত হয়েছে। এখানে নৌকায় পারপার হচ্ছেন মানুষজন। তবে স্থানীয়রা জানিয়েছেন তলিয়ে যাওয়া সড়কের এই অংশটুকু অপক্ষোকৃত অনেক নিচু। প্রতি বছরই বর্ষা মৌসুমে রাস্তার এই অংশ পানি ডুুবে যায়। আবার পানি হ্রাস পেলে সড়ক ভেসে উঠে। বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ জানান, উপজেলার নিম্নাঞ্চলে বন্যা দেখা দিয়েছে। মানুষজন পানিবন্দী হয়ে পড়ছেন। বুধবার বিকেলে উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা হয়েছে। বন্যা মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিয়ে সভায় আলোচনা হয়েছে। তবে পানি বাড়লেও উপজেলার কোথায় কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়। জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. ফরিদুল হক জানান, তারা বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়েছেন।

পানি বাড়লে কোথাও কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। প্রতিটি উপজেলা আপৎকালীন সহায়তার জন্য ১০ মেট্রিক টন চাল ও ৫০ হাজার করে টাকা দেওয়া আছে। যেখানে প্রয়োজনে সেগুলো বিতরণ করা হবে। জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলাম বলেন,‘ টানা বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢলের কারণে বিভিন্ন নদীর পানি বাড়ছে। তবে পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমাদের সবধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু বকর সিদ্দিক ভূঁইয়া বলেন,‘সুরমা নদীর পানি বাড়ছে, তবে এটা বন্যার মত কোন পরিস্থিতি নয়।

এসএস/কেএ




Share Button

আর্কাইভ

July 2018
M T W T F S S
« Jun    
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  

Prayer Time Table

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ভোর ৪:০০
  • দুপুর ১২:০৮
  • বিকাল ৪:৪৩
  • সন্ধ্যা ৬:৫১
  • রাত ৮:১৪
  • ভোর ৫:২২


Developed By Mediait