সোনার সিলেট

সিলেটে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলার উদ্বোধন

Published: 13 11 2018   3:37:04 PM   Tuesday   ||   Updated: 13 11 2018   3:37:04 PM   Tuesday
সিলেটে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলার উদ্বোধন

উচ্চবিত্তদের সবাই কর দিলে দেশের চেহারা পাল্টে যেতো বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (ট্যাক্সেস লিগ্যাল এন্ড এনফোর্সমেন্ট) মো. সিরাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, দেশের ৩৮ শতাংশ মানুষ কর দিচ্ছেন। বাকি ৬৮ শতাংশের মধ্যে উচ্চবৃত্তরা বেশি রয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে সিলেট নগরের রিকাবিবাজার মোহাম্মদ আলী জিমনেশিয়ামে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। আর তা সম্ভব হচ্ছে মানুষের মধ্যে আয়কর দেওয়ার প্রবণতা বাড়ার কারণে। কেননা, আগের তুলনায় বাংলাদেশে আয়কর প্রদানের প্রবণতা বেড়েছে। এখন বিশ্বের বিভিন্ন দেশ মেলার মাধ্যমে আমাদের কর আহরণ ও উদ্বোদ্ধকরণ প্রক্রিয়া অনুস্বরণ করছে।

সিরাজুল ইসলাম বলেন, কর প্রদানকারীদের সংখ্যা আরো ১০ গুণ বাড়াতে পারলে ভারতের সমমান ট্যাক্স আদায় হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

এনবিআর‘র এই কর্মকর্তা বলেন, প্রধানমন্ত্রী সব সময় বলেন- আমরা মাথা নোয়াবার জাতি নয়। বাংলাদেশ এখন আর মাথা নত করে কোনো দেশের কাছ থেকে ঋণ নিচ্ছে না। অথচ একটা সময় ছিল ঋণের জন্য মাথা নোয়াতে হতো। এখন ট্যাক্স দিয়ে আমরা স্বনির্ভর হতে শিখেছি। যে কারণে ৩৩ বছরে ট্যাক্স ২৬ গুণ বেড়েছে। শুধু গত বছরেই রাজস্ব বোর্ড ২ লাখ ১৮ কোটি টাকা আদায় করতে পেরেছে। এছাড়া সিলেটে শিগগিরই কর ভবন করা হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইতোমধ্যে ভূমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু হয়ে গেছে।

সিলেট কর অঞ্চলের কর কমিশনার আবু হান্নান দেলওয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রাখেন সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মো. মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী, সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মো. কামরুল আহসান, এসএমপি কমিশনার গোলাম কিবরিয়া, সিলেট চেম্বার অব কমার্স সভাপতি খন্দকার শিপার আহমদ, আয়কর আইনজীবি সমিতির সভাপতি মৃত্যুঞ্জয় ধর ভোলা প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ফিতা কেটে ও বেলুন উড়িয়ে সপ্তাহব্যাপী মেলার শুভ উদ্বোধন করেন অতিথিবৃন্দ। এরপর তারা বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন। এদিকে প্রথম দিনেই মেলায় উপচেপড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। আয়কর মেলা উদ্বোধনের পর পরই সেবাগ্রহিতারা বিভিন্ন স্টল থেকে সেবা গ্রহণ নিচ্ছেন।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সিলেট কর অঞ্চলের ২২টি সার্কেল রয়েছে। এবার মেলায় ২৩ টি সার্ভিস ডেস্ক, ৩টি ইটিআইএন, রিটার্ন গ্রহণ, সঞ্চয়ী ব্যুরো, আইনজীবী, ব্যাংক বুথের মাধ্যমে সেবা দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া মুক্তিযোদ্ধা, মহিলা প্রতিবন্দ্বী ও সাংবাদিকদের জন্য পৃথক বুথ করা হয়েছে মেলায়।

২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ৮৫২ দশমিক ৯৮ কোটি লক্ষ্যমাত্রা আদায়ের লক্ষ্য নিয়ে অর্থ বছর শুরু করে সিলেট কর অঞ্চল। অর্থ বছরে সিলেটে ১৮ হাজার নতুন ইটিআইএনধারী করার লক্ষ্য সিলেট কর অঞ্চলের।

সোনার সিলেট

জিন্দাবাজারে পাঁচ ভাই রেস্টুরেন্টে পাখির মাংস, র‌্যাবের অভিযান

Published:   3:24:03 PM   Tuesday   ||   Updated: 13 11 2018   3:26:30 PM   Tuesday
জিন্দাবাজারে পাঁচ ভাই রেস্টুরেন্টে পাখির মাংস, র‌্যাবের অভিযান

সোনার সিলেট ডেস্ক।।  সিলেটের পাঁচভাই রেস্টুরেন্টে দেশীয় ও অতিথি পাখি রান্না করে বিক্রির অভিযোগে অভিযান চালিয়ে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৯ ও সিলেট বনবিভাগ। এসময় রেস্টুরেন্টের ফ্রিজ থেকে বিপুল পরিমাণ পাখির মাংস ও রান্না করা পাখি মাংস উদ্ধার করা হয়েছে।মঙ্গলবার বেলা ১ টার দিকে এ অভিযানটি পরিচালনা করা হয়।পরিবেশ আন্দোলনের বাংলাদেশ বাপা সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আবদুল করিম কিম জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন ধরে এই রেস্টুরেন্টে সম্পূর্ণ বেআইনীভাবে পাখির মাংস বিক্রি করা হচ্ছিল।এ কারণে শিকারীরা প্রতিদিনই শতো শতো পাখি এনে এই রেস্টুরেন্টে বিক্রি করতে। যে কারণে পরিবেশের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছিল। কিন্তু বিষয়টি কোন কর্তৃপক্ষই দেখেনি।তিনি বলেন, আমরা বিষয়টি র‌্যাব ও বনবিভাগকে বিষয়টি অবগত করি। তারা এখন সেখানে অভিযান চালাচ্ছেন। এদিকে পরিবেশ কর্মী আবদুল করিম কিম সিলেট নগরীর অন্যান্য রেস্টুরেন্টগুলোর প্রতি হুঁশিয়ারী করে বলেন, যারা চোরের মতো বেআইনীভাবে পাখির মাংস বিক্রি করে পরিবেশের ক্ষতি করছেন তাদের বিরুদ্ধে পরিবেশ আন্দোলনের সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে। কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। সবাইকে আইনের মুখোমুখি দাঁড় করানো হবে।

এসএসডিসি/ একে

সোনার সিলেট

হবিগঞ্জে এসএসসি’র ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি-আদায়ের অভিযোগ

Published:   3:18:39 PM   Tuesday   ||   Updated: 13 11 2018   3:20:40 PM   Tuesday
হবিগঞ্জে এসএসসি’র ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি-আদায়ের অভিযোগ

সোনার ‍সিলেট ডেস্ক।।  শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অমান্য করে হবিগঞ্জে এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি-আদায়ের অভিযোগ উঠেছে অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে। এ নিয়ে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। কিছু কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারী এ নির্দেশনা মানলেও বেশিরভাগ মাধ্যমিক স্কুল ও মাদ্রাসাগুলোতেই নেয়া হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা। চলতি বছর ১৪ অক্টোবর সিলেট শিক্ষা বোর্ডের এক নির্দেশনায় অতিরিক্ত ফি আদায় না করার জন্য বলা হয়।

জানা যায়, ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে শিক্ষার্থীদের জন্য সর্বোচ্চ ১ হাজার ৫’শ ৬৫ টাকা নির্ধারণ করেছে শিক্ষাবোর্ডগুলো যা সরকারি নির্দেশনায় ও রয়েছে। এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগে ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১ হাজার ৫’শ ৬৫টাকা। তবে ব্যবহারিক পরীক্ষার ফি যোগ হলে এই হিসেব আরেকটু বেশি। মানবিক ও ব্যবসা শিক্ষায় ১ হাজার ৪শ ৪৫ টাকা নির্ধারণ করেছে বোর্ড।

বোর্ড ফি-নির্ধারণ করলেও বাস্তব চিত্র তার উল্টো। জেলার স্কুলগুলোতে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিভিন্ন অযুহাতে দ্বিগুন টাকা আদায় করছে স্কুলগুলো। কোন কোন স্কুল কর্তৃপক্ষ নোটিশ দিয়ে আবার কোথায়ও নোটিশ ছাড়াই এসব ফি আদায় করা হচ্ছে। এ বছরই যে বাড়তি ফি আদায় করছে তা কিন্তু নয়। বছরের পর বছর একই চিত্র লক্ষ্য করা যায়। অনিয়ম হলেও বিষয়টি এখন স্বাভাবিক ভাবেই দেখছে স্কুলগুলো।

অভিভাবকরা বলেছেন, অবস্থাটা এমন যে নানা ফন্দি, নানা কৌশলে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে যত বেশি আদায় করা যায় ততই তাদের কাছে মামুলিক ব্যাপার মনে হয়। এই সুযোগে স্কুল কর্র্তৃপক্ষের পকেট ভারি হচ্ছে অবৈধ টাকায়। স্কুল কর্তৃপক্ষের দাবি অনুযায়ি অসহায় অভিভাবকরা সন্তানের ফরম পূরণ করাচ্ছেন। কষ্ট হলেও অর্থের দিকে তাকাননি।

একাধিক অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, আমরা আগামী ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত বেতনাদি পরিশোধ করেছি। জানুয়ারি থেকে ক্লাস, কোচিং ও স্কুলের মডেল টেস্ট বন্ধ থাকবে। অথচ আমাদের কাছ থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত স্কুলের বেতন আদায় করা হচ্ছে। এছাড়া আদায় করা হয়েছে অতিরিক্ত ক্লাস ও মডেল টেস্টের টাকাও। এর প্রতিবাদও করা যায়নি। বাড়তি ফি’র বিষয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদ জানালেও কোনো লাভ হয়নি।

অনুসন্ধানে জানা যায়, শুধুমাত্র সরকারি স্কুলগুলোতে বোর্ডের নির্ধারিত ফি’র চেয়ে কিছু টাকা বেশি নিচ্ছে। আর বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সেশন ফি, সেন্টার ফি, কোচিং ফি ও অগ্রিম মাসের বেতনসহ সব মিলিয়ে বোর্ডের ফি’র চেয়ে দ্বিগুন আবার কোন কোন ক্ষেত্রে তিনগুণ বেশি নিচ্ছে স্কুলগুলো। জেলার বেশ কয়েকটি স্কুলের প্রধান শিক্ষকদের সাথে আলাপকালে এ তথ্য জানা যায়।

হবিগঞ্জ শহরের জে কে এন্ড এইচকে হাই স্কুল এন্ড কলেজ, হবিগঞ্জ দারুচ্ছুন্নাত ফাযিল মাদ্রাসা, হবিগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, হবিগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়, উমেদনগর হাই স্কুল, ভাদৈ আইডিয়াল হাই স্কুল, বানিয়াচং উপজেলার ডাঃ ইলিয়াছ একাডেমী, এলআর উচ্চ বিদ্যালয়, মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী খুর্শিদ হাইস্কুল এন্ড কলেজ, প্রেমদাময়ি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়, আউলিয়াবাদ আরকে উচ্চ বিদ্যালয়, বাহুবল উপজেলার মিরপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, মিরপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, শায়েস্তাগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, শায়েস্তাগঞ্জ ইসলামী একাডেমী এন্ড হাইস্কুলসহ জেলার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ করছেন শিক্ষার্থীরা।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবির মুরাদ যমুনা নিউকে জানান, শিক্ষা বোর্ডের নির্ধারিত ফি’র বাইরে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার কোন সুযোগ নেই। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। যদি কোন শিক্ষা প্রতিষ্টান অতিরিক্তি টাকা আদায় করে তা হলে ওই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে

এসএসডিসি/ এজু

সোনার সিলেট

মাশরাফির বিরুদ্ধে নড়াইলে আ.লীগের ১৫ নেতা

Published:   3:15:15 PM   Tuesday   ||   Updated: 13 11 2018   3:15:15 PM   Tuesday
মাশরাফির বিরুদ্ধে নড়াইলে আ.লীগের ১৫ নেতা

সোনার ‍সিলেট ডেস্ক।।  ওজাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

তিনি নিজ এলাকা নড়াইল-২ আসনে নির্বাচন করবেন বলে জানা গেছে। এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে আরও ১৫ জন মনোনয়ন পত্র কিনেছেন।তারা হলেন-

নড়াইল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলু, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট সৈয়দ আইয়ুব আলী, এসএম আসিফুর রহমান বাপ্পী, লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা লে.কর্নেল (অব.) সৈয়দ হাসান ইকবাল, ব্যবসায়ী বাসুদেব ব্যানার্জী, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুব ও ক্রীড়া উপ-কমিটির সদস্য শেখ মো. আমিনুর রহমান হিমু, কেন্দ্রীয় মহিলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শারমীন সুলতান শর্মী, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো. রাশিদুল বাশার ডলার, আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ উপ-কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট শেখ মো. তরিকুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এস কে আবু বাকের, সাবেক ছাত্রনেতা হাবিবুর রহমান তাপস, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হাসানুজ্জামান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শেখ মো. নূরুজ্জামান, লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মুন্সী কামরুজ্জামান কাজল ও আওয়ামী লীগ নেতা মো. সুজন রহমান।

এসএসডিসি/ এজে

সোনার সিলেট

সিলেটে দুটি প্রতিষ্টানকে ৭০ টাকা জরিমানা

Published: 12 11 2018   2:24:47 PM   Monday   ||   Updated: 12 11 2018   2:27:04 PM   Monday
সিলেটে দুটি প্রতিষ্টানকে ৭০ টাকা জরিমানা

সোনার সিলেট ডেস্ক।।অপরিচন্ন অবস্থায় খাবার প্রস্তুত, খাদ্যে পোড়া তেলের ব্যবহার, ভেজাল দুধ উৎপাদন এবং মেয়াদোত্তীর্ণ খাদ্যদ্রব্য বিক্রয়ের অপরাধে সিলেটের দুটি প্রতিষ্ঠানকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব-৯) পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এর মধ্যে দেশী ফুডস্ কোম্পানীকে নগদ ৫০ হাজার টাকা ও আন্তর্জাতিক মানের খাদ্যজাত পণ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান গোল্ডেন হারভেস্ট আইসক্রীম কোম্পানীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

রোববার (১১ নভেম্বর) দুপুরে সিনিয়র এএসপি মাঈন উদ্দিন চৌধুরীর র‍্যাব-৯ এর একটি দল জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ ফয়েজ উল্যাহকে সাথে নিয়ে শাহপরাণ থানাধীন খাদিম বিসিক শিল্পনগরীতে অভিযান শুরু করে।

প্রায় ঘন্টাব্যাপী এ অভিযানে দেশী ফুডস্ কোম্পানী ও গোল্ডেন হারভেস্ট আইসক্রীম কোম্পানীর পণ্য প্রস্তুতে ভেজাল খুঁজে পায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। পরে দুটি প্রতিষ্ঠানকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এ সময় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অন্যান্য কর্মকর্তা ও র‍্যাব-৯ এর বিপুল সংখ্যক সদস্য উপস্থিত ছিলেন

এসএসডিসি/ এজু

সোনার সিলেট

ভোটে যাচ্ছে ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোট

Published:   2:20:08 PM   Monday   ||   Updated: 12 11 2018   2:21:10 PM   Monday
ভোটে যাচ্ছে ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোট

সোনার সিলেট ডেস্ক ।।   দশ জাতীয় সংসদ নিবার্চনে অংশ নেয়ার ঘোষণা দিয়ে ভোট এক মাস পেছানোর দাবি জানিয়েছে বিএনপিকে নিয়ে গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এর ১৫ মিনিট আগে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কাযার্লয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটও ভোটে যাওয়ার ঘোষণা দেয়।

খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং সংসদ ভেঙে দিয়ে নিদর্লীয় সরকারের অধীনে নিবার্চনের দাবি জানিয়ে আসা ঐক্যফ্রন্ট বলছে, সাত দফা থেকে তারা সরে আসেনি; আন্দোলনের অংশ হিসেবেই তাদের ভোটে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে জোটের এই সিদ্ধান্ত জানান বিএনপি মহাসচিব মিজার্ ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ঐক্যফ্রন্টের শীষর্ নেতা কামাল হোসেনের লিখিত বিবৃতি পড়ে শুনিয়ে ফখরুল বলেন, ‘নিবার্চন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষে নিবার্চনে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত খুবই কঠিন। কিন্তু এ রকম ভীষণ প্রতিক‚ল পরিস্থিতিতেও দেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের অংশ হিসেবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নিবার্চনে অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

তবে ঐক্যফ্রন্ট সাত দফা দাবি থেকে পিছিয়ে আসছে না জানিয়ে ফখরুল বলেন, তার সঙ্গে তফসিল পিছিয়ে দেয়ার দাবি তারা যুক্ত করছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা বতর্মান তফসিল বাতিল করে নিবার্চন এক মাস পিছিয়ে দিয়ে নতুন তফসিল ঘোষণার দাবি করছি। সেই ক্ষেত্রেও বতর্মান সংসদের মেয়াদকালেই নিবার্চন করা সম্ভব হবে।’

ঐক্যফ্রন্টের সাত দফায় বতর্মান সংসদ ভেঙে দিয়ে নিদর্লীয় সরকারের অধীনে নিবার্চনের দাবি ছিল। মুখে ‘দাবি থেকে না সরার’ কথা বললেও বতর্মান সংসদের মেয়াদকালে ভোট আয়োজনে সম্মতি দিয়ে মূল দাবি থেকে পিছু হটলেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা।

২৩ ডিসেম্বর ভোটের দিন রেখে নিবার্চন কমিশন একাদশ জাতীয় সংসদ নিবার্চনের যে তফসিল ঘোষণা করেছে, সেখানে ১৯ নভেম্বর পযর্ন্ত মনোনয়নপত্র জমা এবং ২৯ নভেম্বর পযর্ন্ত প্রাথির্তা প্রত্যাহারের সময় রাখা হয়েছে।

সংবিধান অনুযায়ী, ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারির মধ্যে এ নিবার্চন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে নিবার্চন কমিশনের।

ঐক্যফ্রন্টের লিখিত বিবৃতিতে নিবার্চন পেছনোর পক্ষে যুক্তি দিয়ে বলা হয়, ২০০৮ সালের নিবার্চনে তৎকালীন চার দলীয় জোটের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে তফসিল দুই দফা পেছানো হয়েছিল।

আর জোটের সাত দফা দাবির বিষয়ে সেখানে বলা হয়, ‘এসব দাবি আদায়ের সংগ্রাম জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট অব্যাহত রাখবে। নিবার্চনে অংশগ্রহণকেও সেই আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিবেচনা করবে ফ্রন্ট।’

লিখিত বিবৃতিতে বলা হয়, ‘একটা অংশগ্রহণমূলক এবং গ্রহণযোগ্য নিবার্চন অনুষ্ঠানের যাবতীয় দায়িত্ব সরকার ও নিবার্চন কমিশনের। নিবার্চনে অংশ নেয়ার প্রস্তুতির পাশাপাশি জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট কড়া নজর রাখবে সরকার এবং নিবার্চন কমিশনের আচরণের প্রতি।

‘আমরা বলে দিতে চাই, জনগণের দাবি মানা না হলে উদ্ভূত পরিস্থিতির দায়-দায়িত্ব সরকার ও নিবার্চন কমিশনকেই নিতে হবে।’

এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ঐক্যফ্রন্ট নেতা কামাল হোসেন বলেন, ‘আন্দোলন তো চলতেই থাকবে। নিবার্চনে অংশগ্রহণ করার জন্য এবং পরিবেশ তৈরি করার জন্য আন্দোলন চলবে।’

কামাল হোসেনের নামে ফখরুলের পড়া ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির তথাকথিত নিবার্চন মানুষের ন্যূনতম গণতান্ত্রিক অধিকার, স্বাধীনভাবে ভোট দেয়ার অধিকার হরণ করেছে। নিশ্চিতভাবে আগামী নিবার্চন দেশের মানুষের ভোটাধিকার পুনরুদ্ধারের নিবার্চন হবে।

‘আমরা বিশ্বাস করি, দশম সংসদ নিবার্চনের পর দেশে গণতন্ত্রের যে গভীর সংকট তৈরি হয়েছে, সেই সংকট দূর করে আমাদের ঘোষিত ১১ দফা লক্ষ্যের ভিত্তিতে একটা সুখী, সুন্দর, আগামীর বাংলাদেশ গড়ে তোলার সংগ্রামে দেশের জনগণ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পাশে থাকবে।’

ঐক্যফ্রন্ট জোটগতভাবে নিবার্চন করলে এবং এক দল অন্য দলের প্রতীক ব্যবহার করতে চাইলে রোববারের মধ্যেই তা নিবার্চন কমিশনকে জানাতে হবে। তবে এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে স্পষ্ট কোনো উত্তর দিতে পারেননি জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা।

ঐক্যফ্রন্টভুক্ত দলগুলো অভিন্ন প্রতীকে নিবার্চন করবে কিনা জানতে চাইলে মিজার্ ফখরুল বলেন, ‘আমরা পরে জানাব।’

অন্যদের মধ্যে বিএনপির মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, জেএসডির আ স ম আবদুর রব, আবদুল মালেক রতন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, গণফোরামের মোস্তফা মহসীন মন্টু, সুব্রত চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সুলতান মো. মনসুর আহমদ, গণস্বাস্থ্য সংস্থার ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় নেতারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

ভোটে যাবে ২০

দলীয় জোটও

এদিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নিবার্চনে জোটবদ্ধভাবে অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ২০ দলীয় ঐক্যজোট। একই সঙ্গে বড়দিন ও অন্যান্য কারণে নিবার্চনের ঘোষিত তফসিল এক মাস পেছানোর দাবি জানিয়েছে জোটটি।

রোববার দুপুরে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কাযার্লয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

জোটের এই ঘোষণা পাঠ করেন সমন্বয়ক এলডিপির সভাপতি কনের্ল (অব.) অলি আহমদ। এ সময় ২০ দলীয় জোটের শীষর্ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে অলি আহমদ বলেন, দেশে গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ ও জনগণের প্রতি আস্থা আছে বলেই এত প্রতিকূলতার মাঝেও ২০ দলীয় জোট সবর্সম্মতভাবে আসন্ন জাতীয় সংসদ নিবার্চনে জোটবদ্ধভাবে অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তিনি বলেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গেও আমাদের নিবার্চনী সমঝোতা হবে। আমরা বিশ্বাস করি সরকারের দুনীির্ত, অনাচার, তিস্তার পানি আনতে ব্যথর্তাসহ রাষ্ট্রীয় স্বাথর্রক্ষায় সীমাহীন ব্যথর্তার বিরুদ্ধে রায় দেয়ার সুযোগ জনগণকে দেয়া উচিত। সে কারণেই আমরা নিবার্চনে অংশগ্রহণ করব। যাতে জনগণ তাদের ক্ষোভ ও বেদনা প্রতিবাদ প্রকাশের মাধ্যমে গণতন্ত্র সুশাসন প্রতিষ্ঠার সুযোগ পায়।’

কনের্ল (অব.) অলি আহমদ বলেন, ‘আমরা দাবি করছি, সরকার দেশনেত্রীকে (খালেদা জিয়া) মুক্তি দিয়ে তাকে নিবার্চনে অংশগ্রহণের সুযোগ দেবে; অবিলম্বে জাতীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে নিবার্চনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করবে; অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নিবার্চন অনুষ্ঠানে নিবার্চন কমিশন সরকারের প্রভাবমুক্ত থেকে সততা, নিষ্ঠা ও সাহসিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবে; নিবার্চনে অংশগ্রহণকারী কোনো রাজনৈতিক দলের নেতাকমীের্দর কোনো ধরনের হয়রানি করবে না।’

খালেদা জিয়াসহ দলীয় নেতাকমীের্দর মুক্তি দাবি করে তিনি বলেন, নতুন মামলা না দেয়া ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের বিষয়ে সংলাপে প্রধানমন্ত্রী সুস্পষ্টভাবে আশ্বাস দিয়েছেন। এরপরও বেশি করে মামলা দেয়া হয়েছে এবং হচ্ছে। এখন পযর্ন্ত কোনো নেতাকমীের্ক মুক্তি দেয়া হয়নি। এমনকি ২০ দলীয় জোটের সিনিয়র নেতাদের বিরুদ্ধে দেয়া গায়েবি মামলায় হাইকোটর্ জামিন দেয়ার পর সরকারের আইনজীবীরা চেম্বার জজ আদালতে ওই সমস্ত মামলার জামিন বাতিলের অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

এ সময় অলি আহমদ অভিযোগ করেন, অনুগত নিবার্চন কমিশনকে (ইসি) দিয়ে দেশের সকল বিরোধী দলের আবেদন ও যৌক্তিক পরামশর্ অগ্রাহ্য করে একতরফাভাবে নিবার্চনের তফসিল ঘোষণা করেছে। এর উদ্দেশ্য বিরোধীদলগুলোকে নিবার্চনের জন্য সময় কম দেয়া। কারণ সরকারি দল গত কয়েক মাস ধরে নীতিমালা অমান্য করে নিবার্চনী প্রচারণা করেছে। স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে প্রকাশ্যে দলীয় প্রতীকে ভোট চেয়ে জনসভা করেছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে অলি আহমদ বলেন, তফসিল না পেছালে ২০ দলীয় জোট পরবতীের্ত সিদ্ধান্ত নেবে।

আসন বণ্টনের বিষয়ে তিনি বলেন, জোটের নেতারা বসে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে। এখনো তা চূড়ান্ত নয়।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, জামায়াতের কেন্দ্রীয় নিবার্হী পরিষদের সদস্য মাওলানা আব্দুল হালিম, কল্যাণ পাটির্র চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহীম, জাতীয় পাটির্ (কাজী জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, ইসলামী ঐক্যজোটের সভাপতি অ্যাডভোকেট মাওলানা আব্দুর রকিব, মুসলিম লীগের সভাপতি এএইচ এম কামরুজ্জামান, বাংলাদেশ লেবার পাটির্র চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জাগপার সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান, ন্যাপ ভাসানীর সভাপতি অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের একাংশের সভাপতি মুফতি মো. ওয়াক্কাস, এলডিপির মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের একাংশের সহ-সভাপতি মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী, ইসলামিক পাটির্র সভাপতি আবু তাহের চৌধুরী, ডেমোক্র্যাটিক লীগের মহাসচিব সাইফুদ্দিন মনি, বাংলাদেশ পিপলস পাটির্র সভাপতি রিটা রহমান, বাংলাদেশ জাতীয় দলের সভাপতি সৈয়দ এহসানুল হুদা, বাংলাদেশ ন্যাপের সভাপতি এম এন শাওন সাদেকী, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

তবে জোটের শরিক বাংলাদেশ জাতীয় পাটির্র সভাপতি ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পাথর্ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন না। টেলিফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘গভীর রাতে আমাকে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে সকালে আমার এলাকার অনেক লোকজনের সঙ্গে মিটিং থাকায় আসতে পারিনি। তবে আমি জোটে আছি। জোটবদ্ধ হয়েই নিবার্চন করব।’

সিসিডিসি/ এজু

সোনার সিলেট

বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার হলো যেসব বিএনপি নেতার

Published:   2:13:47 PM   Monday   ||   Updated: 12 11 2018   2:14:14 PM   Monday
বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার হলো যেসব বিএনপি নেতার

সোনার সিলেট ডেস্ক।।  বহিষ্কারাদেশ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রত্যাহার করে আট নেতাকে দলে ফিরিয়েছে বিএনপি। আজ সোমবার দুপুরে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ কথা জানান।

বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের মাধ্যমে বিএনপিতে ফেরা নেতারা হলেন-দলের স্থায়ী কমিটির সাবেক সদস্য চৌধুরী তানভীর আহমেদ সিদ্দিকী, দলের সাবেক দফতর সম্পাদক মফিকুল হাসান তৃপ্তি, সাবেক হুইপ আবু ইউসুফ মো. খলিলুল রহমান, রেড ক্রিসেন্ট এর সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ শহিদুল জামাল, চাঁদপুর জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এস এম সুলতান টিটু।

এ বিষয়ে রুহুল কবির রিজভী বলেন, বিভিন্ন কারণে বহিষ্কার হওয়া ওই নেতাদের বহিষ্কারাদেশ দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বরাবর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দলীয় গঠনতন্ত্রের ৫ (গ) ধারা মোতাবেক দলের স্থায়ী কমিটির সাবেক সদস্য চৌধুরী তানভীর আহমদ সিদ্দিকীর অব্যাহতি প্রত্যাহার করা হয়।

এছাড়া স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নেওয়া চাঁদপুর জেলা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি এস এ সুলতান টিটুকে দলের প্রাথমিক সদস্য পদে পুনর্বহাল করা হয়েছে।

এসএসডিসি/ এজু

সোনার সিলেট

শাবিপ্রবিতে ভর্তি পরীক্ষা না দিয়েও মেধা তালিকায়

Published:   1:57:13 PM   Monday   ||   Updated: 12 11 2018   2:28:05 PM   Monday
শাবিপ্রবিতে ভর্তি পরীক্ষা না দিয়েও মেধা তালিকায়

সোনার সিলেট ডেস্ক।।   শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষ প্রথম সেমিস্টারের ভর্তি পরীক্ষা না দিয়েই মেধা তালিকায় স্থান পাওয়া এক শিক্ষার্থীকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ২০১৮-১৯ সেশনের ভর্তি কমিটির সদস্যসচিব জহীর উদ্দিন আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

জানা যায়, রবিবার ‘বি’ ইউনিটে মেধাতালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের ভর্তি সাক্ষাৎকারের দিন নির্ধারিত ছিল। ‘বি’ ইউনিটে মেধাতালিকায় ৩৫৩ তম হওয়া রাসিক মারজান নামের এক শিক্ষার্থী এইচএসসির নকল সনদ নিয়ে ভর্তি হতে আসেন। এসময় ভর্তি কমিটির সদস্যদের ক্রমাগত জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে রাসিক জালিয়াতির কথা স্বীকার করে।

এ সময় রাসিক মারজান জানায়, পরিবারের সদস্যদের মাধ্যমে তিন লাখ টাকা দিয়ে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর মাধ্যমে জালিয়াতি করে মেধাতলিকায় স্থান পায় সে।

জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি শাহ মো. হারুনুর রশীদ বলেন, ‘পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিটে রাসিকের নামে মামলা আছে। সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সদস্যদের হাতে তাকে তুলে দেয়া হয়।

এসএসডিসি/ এজু

সোনার সিলেট

তফসিল পেছালো, ভোটগ্রহণ ৩০ ডিসেম্বর

Published:   1:48:57 PM   Monday   ||   Updated: 12 11 2018   1:54:05 PM   Monday
তফসিল পেছালো, ভোটগ্রহণ ৩০ ডিসেম্বর

সোনার সিলেট ডেস্ক; একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য পুনঃতফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। পুনঃতফসিল অনুযায়ী ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৩০ ডিসেম্বর।

সোমবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ ঘোষণা দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

পুনঃতফসিল অনুযায়ী মনোনয়ন দাখিলের শেষ তারিখ ১৯ নভেম্বরের পরিবর্তে ২৮ নভেম্বর করা হয়েছে।

এর আগে গত ৮ নভেম্বর সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করেন সিইসি কে এম নূরুল হুদা। ওই তফিসল অনুযায়ী, দাখিলের শেষ তারিখ ১৯ নভেম্বর, মনোনয়ন যাচাই-বাছায়ের শেষ তারিখ ২২ নভেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৯ নভেম্বর ও নির্বাচনের ভোটগ্রহণ ২৩ ডিসেম্বর নির্ধারণ ছিল।

সিসিডিসি/ এজু

সোনার সিলেট

যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

Published: 11 11 2018   7:13:44 PM   Sunday   ||   Updated: 11 11 2018   7:13:44 PM   Sunday
যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

আওয়ামী যুবলীগের ৪৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সিলেটে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার সকাল ১১টায় সুবহানীঘাট সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে মহানগর যুবলীগ।

সিলেট মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক সেলিম আহমদ সেলিমের সভাপতিত্বে ও কার্যকরি কমিটির সদস্য রাহেল আহমদ চৌধুরীর পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট মহানগর যুবলীগের আহবায়ক আলম খান মুক্তি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আলম খান মুক্তি বলেন, দেশ বিরোধী সকল ষড়যন্ত্রকে মোকাবেলা করে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয় সু-নিশ্চিত করতে সিলেট মহানগর যুবলীগের প্রত্যেক নেতা কর্মীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করে যেতে হবে।

আলোচনা সভা শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির রুহের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও রাষ্ট্র নায়ক মাননীয় সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ ও দীর্ঘায়ু কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আনিছুজ্জামান আনিছ, আনিছুর রহমান তিতাস, লাহিন আহমদ, ফারুকুল ইসলাম ফারুক, মুরাদ আহমদ মুরন, আব্দুর রব ছায়েম, ইমামুর রহমান লিটন, গোলজার আহমদ জগলু, হোসেন আহমদ বাবু, কলিন্স সিংহ, মিনহাজ চৌধুরী লিটন, হোসেন আহমদ, ইসলাম উদ্দিন, ওমর ফারুক, উবায়েদ বিন বাছিত সুমন, আব্দুল হাফিজ নুর আলী, মুহিবুর রহমান মুন্না, জাহির আহমদ চৌধুরী, তারেক আহমদ চৌধুরী, বুলবুল চৌধুরী, এডভোকেট আবুল কাশেম প্রমুখ।

printars line
সর্বস্বত্ব www.begum24.com কর্তৃক সংরক্ষিত
সোনার সিলেট