সোনার সিলেট

দেশের সুযোগ্য নাগরিক হতে হলে বাংলা ভাষাকে লালন করতে হবে

Published: 01 03 2018   5:11:58 PM   Thursday   ||   Updated: 01 03 2018   5:11:58 PM   Thursday
দেশের সুযোগ্য নাগরিক হতে হলে বাংলা ভাষাকে লালন করতে হবে

সোনার সিলেট ডটকম।।  অত্যন্ত আনন্দঘন এবং উৎসব মুখর পরিবেশ উপভোগের মধ্য দিয়ে সিলেটে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন পরিষদ’র উদ্যোগে ভাষার গান ও কবিতা সন্ধ্যা। গত সোমবার বাদ সন্ধ্যে সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের শহীদ সোলেমান হলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ভাষাসৈনিক অধ্যক্ষ মাসউদ খান, সভাপতিত্ব করেন শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন পরিষদ’র আহবায়ক শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ কবি কালাম আজাদ। সংগঠক আহমদ মাহবুব ফেরদৌস ও শিল্পী শামসুল ইসলামের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কবিতা সন্ধ্যায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দৈনিক জালালাবাদের সহকারী সম্পাদক কবি নিজাম উদ্দিন সালেহ। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রাবন্ধিক ও সংগঠক জাহেদুর রহমান চৌধুরী। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাষাসৈনিক অধ্যক্ষ মাসউদ খান বলেন, মাতৃভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠার জন্য বাংলার দামাল ছেলেরা তাদের মূল্যবান জীবনকে বিসর্জন দিয়েছেন। তাই ভাষার মর্যাদা রক্ষার জন্য দেশের সর্বক্ষেত্রে বাংলাকে প্রয়োগ করতে হবে। দেশের জন্য একজন সুযোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে হলে নিজের ভাষা ও ঐহিত্যপ্রীতিকে মূল্যায়নের বিকল্প নেই। নিজের ভাষার সুষ্টু লালন-ধারণ করার পাশাপাশি বিদেশী ভাষাকেও চর্চা করতে হবে। এর মাধ্যমে নিজের ভাষার সাথে ভালোবাসার সম্পর্ক তৈরী হবে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দৈনিক জালালাবাদের সহকারী সম্পাদক কবি নিজাম উদ্দিন সালেহ বলেন, যারা সত্যিকারভাবে নিজের ভাষাকে চর্চা করে তারা কখনো বিদেশী ভাষাকে অবজ্ঞা কিংবা অবহেলা করে না। একজন আদর্শ মানুষ শুধু নয়, জ্ঞানের সমৃদ্ধ সাধনের জন্য মাতৃভাষার পাশপাশি বিদেশী ভাষাকে ও রপ্ত করা উচিত। সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ কবি কালাম আজাদ বলেন, সমগ্র পৃথিবী আমাদের স্বদেশ। সুতরাং, বিশ্বমানবিক হওয়ার জন্য বাংলা ভাষার চর্চা এবং অন্যভাষাকেও চর্চা করতে হবে। কারণ ভাষার জন্য জীবন দেওয়া শহীদেরা আমাদের কাছে জীবন্ত প্রেরণা। তাঁদের সম্মানে বাংলা ভাষাকে লালন করা একান্ত কর্তব্য। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন ক্বারী হেলাল আহমদ ও ক্বারী হিফজুর রহমান। ভাষার সংগীত পরিবেশন করেন থিয়েটার মঞ্চ, সিলেট-এর শিল্পীবৃন্দ। দেশাত্ববোধক গান পরিবেশন করেন শিল্পী হিফজুর রহমান। থিয়েটার মঞ্চ, সিলেট-এর শিশুশিল্পীরা ও ভাষা এবং দেশের গান পরিবেশন করেন। মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নাটিাকসহ বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক পরিবেশনার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের মধ্যে আনন্দঘন আমেজের সৃষ্টি হয়। ভাষার গান ও কবিতাসন্ধ্যায় স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেন কবি আব্দুল হক, কবি মো. আব্দুল বাছিত, রেদওয়ান রাফি নবাব, ছড়াকার শাহজাহান শাহেদ, ছড়কার মুয়াজ বিন এনাম, লোকমান হাফিজ, তালহা কাদির। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক জালালাবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আজিজুল হক মানিক, কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সহ সভাপতি সাংবাদিক সেলিম আউয়াল, সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান মাহমুদ রাজা চৌধুরী, সাহিত্য সমালোচক অধ্যাপক কবি বাছিত ইবনে হাবীব, কবি নাজমুল আনসারী, মদনমোহন কলেজের প্রভাষক জিন্নুরাইন চৌধুরী, সংগঠক শাহরিয়ার আলম শিপার, মাওলানা মাসুক আহমদ, গীতিকার-সুরকার মতিউর রহমান খালেদ, ছড়াকার কামরুল আলম, আরিফ সাহেদ শাহরিয়ার, জিল্লুর রহমান, নূরুল আলম, সংগঠক নজরুল ইসলাম, মামুন হোসাইন, রেজাউল করীম, শিশু সংগঠক তাসনীম জায়েদ। এছাড়া অনুষ্ঠানে সিলেটের সাহিত্য-সংস্কৃতি অঙ্গনের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্বসহ বিভিন্ন স্কুল-কলেজ-বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

printars line
সর্বস্বত্ব www.begum24.com কর্তৃক সংরক্ষিত
সোনার সিলেট