সোনার সিলেট

৫০৫০ শিক্ষক নেবে ইসলামিক ফাউন্ডেশন

Published: 14 05 2018   10:51:09 AM   Monday   ||   Updated: 14 05 2018   10:51:09 AM   Monday
৫০৫০ শিক্ষক নেবে ইসলামিক ফাউন্ডেশন

শিক্ষানিকেতন ডেস্ক।। অস্থায়ী ভিত্তিতে ৫০৫০ জন শিক্ষক চেয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে সরকারের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। আবেদনের শেষ তারিখ ৬ জুলাই। জানাচ্ছেন রায়হান রিয়াজ

ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ‘মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম’-এর আওতায় দেশের ৬৪ জেলার ৫৫০টি উপজেলায় প্রাক-প্রাথমিক, বয়স্ক ও সহজ কোরআন শিক্ষা বিষয়ে ৫০৫০ জন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। অস্থায়ীভিত্তিক এ চাকরির মেয়াদ ২০১৯ সাল পর্যন্ত। প্রাথমিকভাবে প্রতিটি উপজেলায় দারুল আরকাম ইবতেদায়ি মাদরাসায় তিনজন করে ৩০৩০ জন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। পর্যায়ক্রমে প্রতি উপজেলায় আরো দুজন করে ২০২০ জন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে।

 

আবেদনের যোগ্যতা

দ্বিনি শিক্ষায় হাফেজ এবং দাওরায়ে হাদিস, ফাজিল বা স্নাতক হতে হবে। সাধারণ শিক্ষায় ফাজিল বা স্নাতক হতে হবে। তবে হাফেজদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। কোনো তৃতীয় শ্রেণি থাকলে আবেদন করা যাবে না। দারুল আরকামের (প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রম) সিলেবাস অনুযায়ী প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত সব বিষয়ে পাঠদানে সক্ষম হতে হবে। প্রার্থীকে ইসলামী অনুশাসনের অনুসারী হতে হবে। আরবি বিষয়ে বিদেশি ডিগ্রিধারীদের এ কার্যক্রমে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। শিক্ষক পদে এর আগে যারা আবেদন করেছেন, তাদেরও পুনরায় আবেদন করতে হবে। সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা একাধিক প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ব্যক্তি আবেদন করতে পারবে না।

 

আবেদন যেভাবে

আবেদন ফরম সংশ্লিষ্ট জেলা কার্যালয় থেকে সংগ্রহ করতে হবে। ফাউন্ডেশনের ওয়েবসাইট (www.islamicfoundation.gov.bd)  ও http://bit.ly/2ruMWFC ওয়েবলিংকেও পাওয়া যাবে। আবেদন ফরম পূরণ করে ৬ জুলাইয়ের মধ্যে প্রকল্প পরিচালক, ‘মসজিদভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্প (ষষ্ঠ পর্যায়), ইসলামিক ফাউন্ডেশন, আগারগাঁও, শেরেবাংলানগর, ঢাকা-১২০৭ বরাবর আবেদন করে সংশ্লিষ্ট জেলা কার্যালয়ে ডাকযোগে বা সরাসরি জমা দিতে হবে। খামের ওপরে পদের নাম ও পূর্ণ ঠিকানা স্পষ্ট করে লিখতে হবে। নির্ধারিত ফরম ছাড়া আবেদন করা যাবে না। যোগাযোগের ঠিকানা লেখাসংবলিত চার টাকা মূল্যের ডাকটিকিটসহ ফেরত খাম সংযুক্ত করতে হবে।

আবেদনপত্রের সঙ্গে সোনালী ব্যাংকের যেকোনো শাখা থেকে ৫০ টাকা মূল্যের পে-অর্ডার বা ব্যাংক ড্রাফট জমা দিতে হবে।

 

যা লাগবে

পাসপোর্ট সাইজের সদ্য তোলা ২ কপি ছবি, সব শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার সনদ, নাগরিকত্ব সনদ, জাতীয় পরিচয়পত্র, জন্মনিবন্ধন সনদের ফটোকপি গেজেটেড অফিসারের দেওয়া চারিত্রিক সনদপত্র আবেদনপত্রের সঙ্গে জমা দিতে হবে। মৌখিক পরীক্ষার সময় শিক্ষাগত যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা ও অন্যান্য সনদপত্রের মূলকপি দাখিল করতে হবে।

 

নিয়োগপ্রক্রিয়া

প্রকল্পের উপপরিচালক এ বি এম শফিকুল ইসলাম জানান, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে নিয়োগ দেওয়া হবে। দেখা হবে শিক্ষাগত যোগ্যতা, উচ্চশিক্ষা, মেধা, হাফেজি জ্ঞান, ভাষাগত জ্ঞান, দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা। তবে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার নম্বর বণ্টন এখনো নির্ধারণ করা হয়নি বলে জানান এ বি এম শফিকুল ইসলাম।

তিনি আরো জানান, আবেদনকৃত প্রার্থীদের পরীক্ষার স্থান, তারিখ ও সময় প্রার্থীর যোগাযোগের ঠিকানায় ডাকযোগে জানিয়ে দেওয়া হবে।

 

পরীক্ষার প্রস্তুতি

মূল প্রস্তুতিটা নিতে হবে লিখিত পরীক্ষার জন্যই। লিখিত পরীক্ষায় সাধারণত বেশি নম্বর থাকে। এ বি এম শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘ধর্মীয় শিক্ষা, দ্বিনি বই, প্রথম শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণির বাংলা, ইংরেজি, গণিত, বিজ্ঞান, ইসলাম শিক্ষা ও সাধারণ জ্ঞান থেকে প্রশ্ন আসতে পারে।

তিনি আরো জানান, সাধারণত নিয়োগ পরীক্ষা হয় অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ পরীক্ষার মতোই। তবে ভিন্ন হতে পারে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার মানবণ্টন। লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয় এমসিকিউ পদ্ধতিতে।

বাংলা, গণিত ও ইংরেজির জন্য প্রথম শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণির পাঠ্য বই, ইসলামী শিক্ষা অংশের প্রস্তুতির জন্য সাধারণ শিক্ষা ও মাদরাসার পাঠ্য বই সহায়ক হবে। সাধারণ জ্ঞানে বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি থেকে প্রশ্ন আসতে পারে।

 

বেতন-ভাতা

নিয়োগপ্রাপ্ত প্রার্থীদের মাসিক সম্মানী ভাতা হিসাবে ১১৩০০ টাকা এবং বছরে দুটি ইনসেনটিভ ভাতা দেওয়া হবে।

printars line
সর্বস্বত্ব www.begum24.com কর্তৃক সংরক্ষিত
সোনার সিলেট