১লা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ সকাল ১১:৪৯

ভিয়েতনামের রাষ্ট্রীয় পদক পাচ্ছেন পূজা

ডেস্ক নিউজ
  • আপডেট শনিবার, ডিসেম্বর ২৪, ২০২২,
  • 38 বার পঠিত

ভিয়েতনামের রাষ্ট্রীয় পদক ‘ফ্রেন্ডশিপ মেডেল’ পাচ্ছেন বাংলাদেশের নৃত্যশিল্পী পূজা সেনগুপ্ত। বাংলাদেশে অবস্থিত ভিয়েতনাম দূতাবাস থেকে চিঠি দিয়ে এই পদকের কথা নিশ্চিত করা হয়েছে নৃত্যশিল্পীকে।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ভিয়েতনাম ও বাংলাদেশের বন্ধুত্বের সম্পর্ককে সুদৃঢ় করায় অবদান রাখা এবং ‘হোচিমিন: আ জার্নি টু এক্সপ্লোর দ্য লাইট উইদইন’ শিল্পকর্ম  নির্মাণে অসাধারণ নৈপুণ্য প্রদর্শনের জন্য ভিয়েতনামের রাষ্ট্রপতির পক্ষ থেকে পূজাকে এই সম্মাননায় ভূষিত করা হয়েছে।

এ উপলক্ষ্যে ঢাকাস্থ ভিয়েতনাম দূতাবাসে বুধবার (২৮ ডিসেম্বর) একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে ভিয়েতনাম দূতাবাস।   অনুষ্ঠানে ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে পূজার হাতে ফ্রেন্ডশিপ মেডেল তুলে দিবেন ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত ফাম ভিয়েত চিয়েন।

এ বছর একমাত্র বাংলাদেশি  হিসেবে এই পুরষ্কার পাচ্ছেন তরুণ নৃত্যশিল্পী ও সাংস্কৃতিক উদ্যোক্তা এবং তুরঙ্গমীর প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক পূজা সেনগুপ্ত। ভিয়েতনামের সঙ্গে অন্যান্য দেশের সম্পর্কের উন্নয়ন এবং নিজ কর্মক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য ভিয়েতনামের রাষ্ট্রপতির পক্ষ থেকে বিদেশিদের এই পুরষ্কার প্রদান করা হয়।

এক্ষেত্রে উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে কিংবদন্তি নেতা হোচিমিনের জীবন নিয়ে একটি নৃত্য প্রযোজনা নির্মাণের জন্য তুরঙ্গমীকে আনুষ্ঠানিক চিঠি দেয় ভিয়েতনাম দূতাবাস। তুরঙ্গমী রেপার্টরি ড্যান্স থিয়েটারের প্রযোজনায় এবং ভিয়েতনাম সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় প্রথম মঞ্চে আসে বিশ্বের প্রথম জীবনীভিত্তিক ড্যান্স থিয়েটার “হোচিমিন”। প্রথম প্রদর্শনীতেই দর্শক, সমালোচক, মিডিয়া এবং দেশি ও বিদেশি দর্শকদের কাছে ব্যাপকভাবে প্রসংশিত হয় প্রযোজনাটি।

ড্যান্স থিয়েটার হোচিমিন পূজা সেনগুপ্তর একটি মৌলিক প্রযোজনা যা ঐ বছরই ইউনেস্কোর ইন্টারন্যাশনাল ড্যান্স কাউন্সিলের প্যানোরমায় প্রথম বাংলাদেশি প্রযোজনা হিসেবে জায়গা করে নেয়। প্যানোরমায় পূজা সেনগুপ্ত’র হোচিমিন প্রযোজনাটিকে বিশ্বের প্রথম জীবনীমূলক নৃত্য নাটক হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

৪০ মিনিট দৈর্ঘ্যের এই প্রযোজনার মূল ভাবনা, নকশা, পান্ডুলিপি, নৃত্য নির্মাণ ও নির্দেশনায় ছিলেন পূজা সেনগুপ্ত।  ২০১৭ সালে ভিয়েতনাম সরকারের আমন্ত্রণে আন্তর্জাতিক নৃত্য উৎসবে অংশগ্রহণের জন্য সরাসরি প্রতিযোগিতা করে নির্বাচিত হয় তুরঙ্গমীর আরেকটি জনপ্রিয় প্রযোজনা ‘অনামিকা সাগরকন্যা’। সে সময় পূজা সেনগুপ্ত’র নেতৃত্বে তুরঙ্গমীর ১০ সদস্যের দল উৎসবে  অংশগ্রহণ করে ও পুরষ্কৃত হয়।

২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই বাংলাদেশের নাচের নিজস্ব ধারা নির্মাণ ও নাচে পেশাদারিত্ব অর্জনের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে তুরঙ্গমী। দেশের বাইরেও বিভিন্ন উৎসবে অংশ নিয়েছে। কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৯ সালে প্রথম বাংলাদেশি নৃত্যশিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে তুরঙ্গমী স্কুল অব ড্যান্স এবং ব্যক্তিগতভাবে পূজা সেনগুপ্ত ইন্টারন্যাশনাল ড্যান্স কাউন্সিল ইউনেস্কোর সদস্যপদ লাভ করেন। সংস্কৃতিকে উদ্যোগ হিসেবে গড়ে তরুণ শিল্পীদের কাজের ক্ষেত্র নির্মাণের জন্য ২০১৮ সালে  সম্মানজনক উদ্যোক্তা পুরষ্কার ‘নুরুল কাদের সম্মাননা’ লাভ করেন পূজা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরও সংবাদ

Rokomari Book

© All rights reserved © 2016 Paprhi it & Media Corporation
Developed By Paprhihost.com
ThemesBazar-Jowfhowo