৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ সন্ধ্যা ৬:০৫

সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সাথে মতবিনিময় সভা ভারতের আসাম সহ উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলির সাথে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধিতে গুয়াহাটি মিশন আন্তরিক ভাবে কাজ করছে —– সহকারী হাই কমিশনার রুহুল আমিন

সোনার সিলেট ডেস্ক
  • আপডেট সোমবার, মে ১, ২০২৩,

ভারতের আসাম রাজ্যের গুয়াহাটি’তে নিযুক্ত বাংলাদেশের সহকারী হাই কমিশনার ও মিশন প্রধান রুহুল আমিন বলেছেন, ভারতের উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলির সাথে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধিতে আসামের গুয়াহাটি মিশন আন্তরিক ভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছে। বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধি এবং সম্পর্ক উন্নয়নে আমরা আন্তরিক ভাবে কাজ করছি। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদশ-ভারত সম্পর্ক অনেক এগিয়ে গেছে।
তিনি দুই দেশের স্থলবন্দরের ব্যবসা-বাণিজ্য আরও সহজ করতে সরকারের নানা উদ্যােগের কথা জানান।
গত ৩০ এপ্রিল রোববার সন্ধ্যায় দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র কনফারেন্স রুমে সিলেটের ব্যবসায়ী ও সূধিজনের সাথে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র সভাপতি ও এফবিসিসিআই’র পরিচালক তাহমিন আহমদ।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি ফালাহ উদ্দিন আলী আহমদ, সহ-সভাপতি মো: আতিক হোসেন, পরিচালক আলীমুল এহছান চৌধুরী ,মুজিবুর রহমান মিন্টু, সারোয়ার হোসেন (ছেদু),ওয়াহিদুজ্জমান চৌধুরী (রাজিব)।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গুয়াহাটি মিশনের বাণিজ্য বিষয়ক কর্মকর্তা আজহারুল আলম।
অনুষ্ঠানে সার্বিক তাত্ত্ববধান করেন দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সচিব মো: গোলাম আক্তার ফারুক।
উন্মুক্ত আলোচনায় অংশ গ্রহন করেন সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সদস্য বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এমদাদ হোসেন, সিলেট প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি আবদুল কাদের তাপাদার, সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের (ভারপ্রাপ্ত) সভাপতি গুলজার আহমদ হেলাল, জৈন্তাপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি নূরুল ইসলাম ও সাংবাদিক হুমায়ুন কবির লিটন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে গুয়াহাটি’তে নিযুক্ত বাংলাদেশের সহকারী হাই কমিশনার ও মিশন প্রধান রুহুল আমিন আরও বলেন, আসামের সাথে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য,পযর্টন শিল্পের উন্নয়ন ও বিকাশে এবং সম্পর্ক উন্নয়নে গুয়াহাটি মিশন নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। ভারতের উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলোর সাথে আমাদের চমৎকার সম্পর্ক রয়েছে।
তিনি বলেন,সিলেট-ডাউকি-শিলং-হয়ে গুয়াহাটি পর্যন্ত বাস সার্ভিস পুনরায় চালু করা যেতে পারে।
আসাম সহ উত্তর-পূর্ব রাজ্যের মানুষের জন্য ভিসা সহজ করা হয়েছে। উভয় দেশের মানুষ এখন সহজে ভ্রমনে করতে পারছেন । বাংলাদেশ-ভারতের ব্যবসা-বাণিজ্যের উন্নয়নে গুয়াহাটি মিশন সবরকম সহযোগিতা করে যাবে। চলিত বছরে গুয়াহাটি’তে বাংলাদেশি পন্যের প্রদর্শনী আয়োজন করার কথা জানান। বাংলাদেশের উৎপদিত পন্য আসামে বাজার জাত করার বিষয়ে আমরা চেষ্টা করছি। এ কাজে সিলেটের ব্যবসায়ীদের এগিয়ে আসার আহবান জানান। তিনি বাংলাদেশী ব্যবসায়ী সহ ভারত ভ্রমনে যাওয়া পর্যটকদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের বিষয়ে আশ্বাস দেন।
অনুষ্ঠানে সিলেটের ব্যবসায়ীরা তামাবিল,ভোলাগঞ্জ, সুতারকান্দি স্থলবন্দেরর বিভিন্ন সমস্যার কথা গুয়াহাটি মিশন প্রধান কে অবগত করেন। সভায় বিভিন্ন পন্য ও কৃষি যন্ত্রপাতি আসাম সহ উত্তর-পূর্ব রাজ্য গুলিতে রপ্তানীর বিষয়ে গুয়াহাটি মিশন প্রধানের সহযোগিতা কামনা করা হয়।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র সভাপতি ও এফবিসিসিআই’র পরিচালক তাহমিন আহমদ বলেন, আমাদের প্রতিবেশ দেশ ভারতের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। দুই দেশে ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধিতে তিনি গুয়াহাটি মিশনের সহায়তা কামনা করেন। তিনি কোম্পানীগঞ্জ’র ভোলাগঞ্জে শুল্কস্টোশন স্থাপনের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষন করেন। তিনি বলেন, সিলেটের সাথে ব্যবসা-বাণিজ্য, পর্যটন শিল্পের উন্নয়ন ও বিকাশ এবং ভারতীয় পর্যটক আগমনে আমাদের আর কাজ করা প্রয়োজন। তিনি শিলচর সহ বরাক ভ্যালী’র মানুষের জন্য ভিসা প্রক্রিয়া সহজ করার আহবান জানান। বরাক ভ্যালীর জনগনের সাথে আমাদের ভাষা, সাহিত্য সংস্কৃতি মিল রয়েছে। তিনি বলেন, প্রতিবেশি দেশের সাথে আমাদের অনেক বাণিজ্যিক ঘটতি রয়েছে। ভারতের উত্তর-পূর্ব রাজ্য আসাম সহ সেভেন সিস্টারস রাজ্যগুলির সাথে রপ্তানি মূখি ব্যবসা-বাণিজ্য আরও বাড়াতে হবে। ভারতীয় ইমিগ্রশন কার্যক্রমের ধীরগতি সহ পর্যটক হয়রানি সহ বিভিন্ন সমস্যার কথা জানান।
সিলেট প্রেসক্লাব সহ-সভাপতি আবদুল কাদের তাপাদার বলেন,প্রতিবেশি দেশ ভারতের সাথে আমাদের আমদানী নির্ভর ব্যবসা-বাণিজ্য কমিয়ে এনে রপ্তানী মূখি ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে হবে। তিনি বলেন দুই দেশের সম্পর্ক উন্নয়ন ব্যবসা-বাণিজ্যের বিষয়ে প্রয়োজনে একটি গবেষনা সেল স্থাপন করা যেতে পারে।
অনুষ্ঠানে দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির
পক্ষ থেকে প্রধান অতিথি সহকারী হাই কমিশনার রুহল আমিন-কে ক্রেষ্ট ও উপহার প্রদান করা হয়। এছাড়া দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি তাহমিন আহমদ-কে গুয়াহাটি মিশনের পক্ষ থেকে উপহার প্রদান করা হয়। পরে তিনি বঙ্গবন্ধু কর্ণার পরিদর্শন করেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2016 Paprhi it & Media Corporation
Developed By Paprhihost.com
ThemesBazar-Jowfhowo