৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ সন্ধ্যা ৭:৫৩

হবিগঞ্জে “শব্দকথা সাহিত্য উৎসব— ২০২৩” উদযাপন

সোনার সিলেট ডেস্ক
  • আপডেট রবিবার, নভেম্বর ১৯, ২০২৩,

ইতিহাস, ঐতিহ্য, শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি, প্রাচীন নিদর্শন, আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র, মহান মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় ইতিহাস, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অন্যতম ও ঐতিহ্যবাহী একটি জনপদ হবিগঞ্জ জেলাকে দেশব্যাপি উপস্থাপন করতে শব্দকথা প্রকাশন আয়োজন করেছে “শব্দকথা সাহিত্য উৎসব-২০২৩”।
গতকাল সকাল ১০ ঘটিকায় শব্দকথা’র সম্পাদক ও প্রকাশক মনসুর আহমেদ এর সভাপতিত্বে শব্দকথা’র সহ-সম্পাদক  আখতার উজ্জামান সুমন ও আখতারুজ্জামান তরফদারের সঞ্চালনায় হবিগঞ্জ জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে শব্দকথা সাহিত্য উৎসবের শুভ উদ্বোধন করেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ত্রৈমাসিক শব্দকথা’র সম্পাদকীয় উপদেষ্টা মিলন রশীদ,মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন প্রাবন্ধিক কামাল আহমেদ। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক দেবী চন্দ, দেশবরেণ্য আবৃত্তিশিল্পী মাহিদুল ইসলাম মাহি, কবি, কথাসাহিত্যিক ও অভিনেতা এবিএম সোহেল রশীদ, অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর ইকরামুল ওয়াদুদ, ছফিনা-নূর ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা আব্দুস ছামাদ আজাদ, হবিগঞ্জ জেলা কালচারাল অফিসার অসিত বরণ দাশ গুপ্ত।
উক্ত অনুষ্ঠানে বাংলা সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য নগদ অর্থসহ ছফিনা-নূর শব্দকথা সাহিত্য পুরস্কার প্রদান করা হয়। কবিতায় পুরস্কৃত হয়েছেন কবি নেহাল হাফিজ, কথাসাহিত্যে আয়েশা আহমেদ, প্রবন্ধে একে আজাদ খান, শিশুসাহিত্যে অধ্যাপক হামিদা আনজুমান, শব্দকথা শিশু কিশোর পাণ্ডুলিপি পুরস্কার পেয়েছেন প্রফেসর জাহান আরা খাতুন। সংগীতে বিশেষ অবদানের জন্য উৎসব স্মারক পেয়েছেন দেশবরেণ্য সংগীতশিল্পী সৈয়দ আশিকুর রহমান ও বাঁধন মোদক, কৃতিত্ব স্মারক পেয়েছেন প্রচ্ছদশিল্পী আশীষ আচার্য্য ও আখতার উজ্জামান সুমন। অনুষ্ঠানে ত্রৈমাসিক শব্দকথা’র উৎসব সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির এমপি বলেন, “শব্দকথার এই উৎসব হবিগঞ্জের সাহিত্য অঙ্গনে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। ভবিষ্যতে এ ধরনের অনুষ্টান আয়োজনে যত ধরনের পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়োজন তা করার আশ্বাস ব্যক্ত করেন।”

দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের ২য় পর্বে শব্দকথা লেখক পাঠক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক হাবিব খোকনের সঞ্চালনায় আবৃত্তিশিল্পী মাহিদুল ইসলাম মাহি’র একক আবৃত্তি ও মোস্তাক বাহার এবং দিতি দাসের পরিচালনায় ধামাল নাচ, গ্রাম বাংলার হারিয়ে যাওয়া বিয়ের গীত পরিবেশন করা হয়।
এছাড়া নবীন, প্রবীণ কবিদের স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি অনুষ্ঠানে নতুন মাত্রা যুক্ত করে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2016 Paprhi it & Media Corporation
Developed By Paprhihost.com
ThemesBazar-Jowfhowo