২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ সকাল ১১:০৩

বোরকা পরে যুবলীগ নেতাকে হত্যা: আখাউড়া ইমিগ্রেশনে গ্রেফতার এক আসামি

সোনার সিলেট ডেস্ক
  • আপডেট বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২৩,

কুমিল্লার তিতাসে বোরকা পরে যুবলীগ নেতা জামাল হোসেনকে গুলি করে চাঞ্চল্যকর হত্যা ঘটনার পলাতক আসামি বাদলকে গ্রেফতার করেছে আখাউড়া আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন পুলিশ।

বুধবার(১৩ সেপ্টেম্বর) দুবাই থেকে ভারত হয়ে আগরতলা ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট সীমান্ত পথে বাংলাদেশে প্রবেশের পথে আখাউড়া আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট পুলিশ আসামি বাদলকে আটক করে। সন্ধ্যায় আখাউড়া থানা পুলিশের কাছে তাকে সোপর্দ করে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ।

ইমিগ্রেশন পুলিশ জানান, গত ৩০ এপ্রিল রাত সাড়ে ৮টার দিকে কুমিল্লার দাউদকান্দির গৌরিপুর বাজারে হত্যা করা হয় তিতাস উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জামাল হোসেনকে। তিন জন বোরকা পরিহিত ব্যক্তি তাকে গুলি করে হত্যা করে। নিহত যুবলীগ নেতার বাড়ি তিতাস উপজেলায় হলেও তিনি ব্যবসা করতেন পাশের দাউদকান্দি উপজেলার গৌরিপুর বাজারে। বসবাস করতেন বাজারের পাশে ভাড়া বাসায়। এই হত্যাকাণ্ডের তিন দিনের মাথায় দাউদকান্দি থানায় মামলা দায়ের করেন নিহত জামালের স্ত্রী পপি আক্তার। মামলার এজাহারে ৯ জনকে আসামি করা হয়।

গ্রেফতারকৃত বাদল এজাহারে বর্ণিত আসামিদের মধ্যে পাঁচ নম্বর। মামলার অপর আসামিদের মধ্যে ৫ জন বিদেশে অবস্থান করছেন। কালা মনির নামের অপর এক আসামি আত্মগোপনে আছেন বলে জানা গেছে।

গ্রেফতারকৃত আসামি বাদল সাংবাদিকদের জানান, তাদের মধ্যে বহুদিনের অন্তর্দ্বন্দ্ব ছিল। তবে এই ঘটনার সঙ্গে তিনি সম্পৃক্ত নন বলে দাবি করেন।

বাদল তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামের রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2016 Paprhi it & Media Corporation
Developed By Paprhihost.com
ThemesBazar-Jowfhowo